সোমবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২০

প্রকাশ : 2020-11-06

স্টার জলসা, স্টার প্লাস সহ বিভিন্ন ভারতীয় চ্যানেল বন্ধ

স্টার জলসা, স্টার প্লাসসহ বিভিন্ন ভারতীয় চ্যানেল বন্ধ করে দিয়েছে কেবল অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব)। চ্যানেলগুলো পরিবেশক জাদু ভিশনের সঙ্গে সমস্যা সমাধান না হওয়ায় বাংলাদেশে স্টার গ্রুপের ওই চ্যানেলগুলো বুধবার থেকে সম্প্রচার বন্ধ রেখেছে কেবল অপারেটররা।

কেবল অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব) প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এসএম আনোয়ার পারভেজ সাংবাদিকদের বলেন, “পূর্ব সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৪ নভেম্বর সন্ধ্যা ৬টা থেকে স্টার গ্রুপের (স্টার প্লাস, স্টার জলসা, ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক, স্টার গোল্ড ও লাইফ ওকে) সম্প্রচার বন্ধ রেখেছে কেবল অপারেটররা।”

তবে যেসব অপারেটর কোয়াবের সদস্য নয়, তারা সম্প্রচার চালু রেখেছে জানিয়ে আনোয়ার পারভেজ বলেন, “আমরা বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছি, এর ফলে দেশের মোট ৭৫ শতাংশ দর্শক এবং ঢাকার প্রায় ৯০ শতাংশ দর্শক এসব চ্যানেল দেখতে পারছে না।”

এর আগে গত ২৮ অক্টোবর সংবাদ সম্মেলন করে স্টারগ্রুপের চ্যানেল বন্ধের হুমকি দিয়েছিল ক্যাবল অপারেটর্স অব বাংলাদেশ (কোয়াব)। সে সময় জানানো হয়, সাতদিনের মধ্যে জাদু ভিশন লিমিটেড তাদের দাবি না মানলে স্টার গ্রুপের সাত টিভি চ্যানেল বর্জন করবে।

সে অনুযায়ী, বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে তারা চ্যানেলগুলোকে অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য বয়কটের ঘোষণা দিয়েছেন। এ নিয়ে একটি বিবৃতি দিয়েছে কোয়াব। এতে কোয়াবের প্রেসিডেন্ট এসএম আনোয়ার পারভেজ বলেন, দেশজুড়ে ক্যাবল অপারেটরদের এসব চ্যানেল প্রদর্শন না করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

কোয়াব প্রেসিডেন্ট আরও জানান, কোয়াবের বিবৃতি দেয়ার পর ইতোমধ্যে অনেক ক্যাবল অপারেটর স্টার গ্রুপের চ্যানেলগুলো প্রদর্শন বন্ধ করে দিয়েছে। অন্যরাও বন্ধ করার প্রক্রিয়ায় আছেন।

২০১০ সাল থেকে বাংলাদেশে স্টার প্লাস, স্টার জলসা, ন্যাশনাল জিওগ্রাফি, লাইফ ওকে এবং স্টার গোল্ডের বাংলাদেশি পরিবেশক হিসেবে কাজ করছে জাদু ভিশন লিমিটেড।

কোয়াব নেতাদের অভিযোগ, জাদু ভিশন নানা অজুহাতে যখন-তখন বিদেশি চ্যানেলগুলো বন্ধ করে দিচ্ছে। গ্রাহকদের জিম্মি করে ক্যাবল টিভি ব্যবসাকে হুমকির মুখে ঠেলে দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানে জাদু ভিশন লিমিটেডকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত সময় দিয়েছে কোয়াব।