সোমবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২০
সরকারের উন্নয়ন, অগ্রগতি বিরােধী অপশক্তির বিষদাঁত ভেঙ্গে দিতে চট্টগ্রামের জনসাধারণ সর্বদা প্রস্তুত।

সরকারের উন্নয়ন, অগ্রগতির ঈর্ষণীয় সাফল্যকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে উগ্র মৌলবাদ, সাম্প্রদায়িকতা ও ভালবাদী সন্ত্রাসী গােষ্ঠীর বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছে চট্টগ্রামের সর্বস্তরের জনগণ। এ উপলক্ষে ২৮ নভেম্বর চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ চত্বরে জাতীয় শ্রমিকলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ চট্টগ্রাম মহানগরের আওতাধীন সকল থানা ও ওয়ার্ড কমিটির উদ্যোগে উগ্র মৌলবাদ, সাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গীবাদ বিরােধী সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নােমান আল মাহমুদ। সমাবেশে বক্তারা বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার যখন বিশে উন্নয়নের অনন্য দৃষ্টান্ত হয়ে উঠছে, ঠিক সেসময় বিএনপি-জামায়াত শিবিরের প্রত্যক্ষ ইন্ধনে জঙ্গী, মৌলবাদী ও অসাম্প্রদায়িকতা বিরােধী একটি চক্র সরকারের ভাবমূর্তি বিনষ্টের যড়ষন্ত্রে উঠে পড়ে লেগেছে। সরকারের উন্নয়ন, অগ্রগতি বিরােধী এই অপশক্তির বিষদাঁত ভেঙ্গে দিতে চট্টগ্রামের আপামর জনসাধারণ সর্বশক্তি নিয়ে প্রস্তুত রয়েছে।

কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক সদস্য মাে. ইছার সভাপতিত্বে ও যুবলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সদস্য আবদুল মান্নান ফেরদৌসের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ফারুক আহমেদ, দিদারুল আলম মাসুম, সিরাজুল ইসলাম, নাজমুল হক ডিউক, হাসান মুরাদ বিপুব, দিদারুল আলম, আনােয়ারুল ইসলাম বাপ্পী, জহির উদ্দিন বাবর, সুমন দেবনাথ, তারেক সর্দার, আবদুর রহিম, রেজাউল আলম রণি, মিরণ হােসেন মিরন প্রমূখ। সমাবেশ শেষে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ মিছিল জেলা পরিষদ চত্বর থেকে লালদিঘী, আন্দরকিল্লা, চেরাগী পাহাড়  মােড় হয়ে ঢট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব চত্বরে এসে শেষ হয়। বিজ্ঞপ্তি

সাবেক ছাত্রনেতা লিমনের মুক্তির দাবিতে বাকলিয়া থানা ছাত্রলীগের মানববন্ধন।

২৪ নভেম্বর মঙ্গলবার বিকেল তিন ঘটিকায় বাকলিয়া থানার অন্তর্গত কালামিয়াবাজার মোড়ে (কে. বি. কনভেনশন হলের সামনে) উক্ত মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের উপ-আইন সম্পাদক মুনীর চৌধুরী এর সভাপতিত্বে ও এন আই টি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তাহমিদ বিন জামাল ও বাকলিয়া থানা ছাত্রলীগ নেতা ছৈয়দ মোহাম্মদ সাদিক শাহরিয়ার ও সাইফুর রহমান আকাশ এর যৌথ সঞ্চালনায় উক্ত মানববন্ধন পালিত হয়।

উক্ত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, বাকলিয়া থানা আওয়ামী লীগের সদস্য মোক্তার হোসেন লিটন, ১৯নং ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা মাশরুর হোসাইন, চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক ওসমান গণি, সদস্য ইফতেখার হোসাইন শায়ান; সিটি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম, চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মোঃ বেলাল, কমার্স কলেজ ছাত্রলীগ নেতা রবিউল আলম রবিন, চট্টগ্রাম পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম, পিসিআইইউ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি অনিকমান বড়ুয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক নিঝুম পারিয়াল রাজ; সদরঘাট থানা ছাত্রলীগ নেতা এবিএস বাবর ও নগর ছাত্রলীগ নেতা কামরুল হাসান আরমান।

বাকলিয়া থানা আওয়ামী লীগের সদস্য মোক্তার হোসেন লিটন বলেন, ‘যারা হাইব্রিড, তারা আজকে জননেত্রী শেখ হাসিনা’র প্রকৃত কর্মীদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। তারা ছদ্মবেশে আমাদের ভিতর ঢুকে আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করার এজেন্ডা নিয়ে মাঠে নেমেছে। আমরা ষড়যন্ত্রকারীদের দাঁতভাঙা জবাব দিতে প্রস্তুত আছি। আমরা সাইফুল আলম লিমনকে যে প্রহসনমূলক মামলা দিয়ে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তার তীব্র নিন্দা জানাই ও অনতিবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানাই।’

এদিকে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের উপ-আইন বিষয়ক সম্পাদক মুনির চৌধুরী বলেন,‘ সাইফুল আলম লিমন কোন সন্ত্রাসী নন। তিনি চট্টগ্রামের অসংখ্য ছাত্রলীগ কর্মীর নেতা। চট্টগ্রামের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে তার কর্মী রয়েছে। লিমন ভাই এর যোগ্যতার কাছে পরাজিত হওয়ার ভয়ে আজকে একদল লোক ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। আমরা এই ষড়যন্ত্রের তীব্র নিন্দা জানাই এবং লিমন ভাই এর মুক্তির দাবি জানাই।

মানববন্ধনে বক্তারা আরও বলেন, ‘সাইফুল আলম লিমন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক মেধাবী ছাত্রনেতা। তিনি জামাত বিএনপির আমলে দলের দুঃসময়ে রাজনীতি করেছেন। তিনি কোন সন্ত্রাসী নন।’ তার রাজনৈতিক যোগ্যতার কাছে পরাজিত হয়ে একটি পক্ষ ষড়যন্ত্রের পথ বেছে নিয়েছেন বলে দাবি করেন বক্তারা। তারা আরও বলেন লিমন যদি সন্ত্রাসী কিংবা কিশোরগ্যাং হতো তবে এতগুলো ইউনিটের ছাত্রনেতা, শ্রমিক নেতা ও যুবনেতা তার মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন করতেন না।

এছাড়া উক্ত মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন  বাকলিয়া থানা ছাত্রলীগের সংগঠক তোফাজ্জল হোসেন রুকন, ছৈয়দ মোহাম্মদ সাদিক  শাহরিয়ার, তালুকদার আসিফ, তূর্যয় সাজ্জাদ, মোহাম্মদ সাকিব, বাকলিয়া থানা বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদের সহ-সভাপতি রকিব হাসান। এবং বাকলিয়া কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি সাইফ মোহাম্মদ আরমান, সহ-সভাপতি রিদুওয়ানুল হক, সাধারণ সম্পাদক এম.এম মোহাইমিনুন, ছাত্র সংসদের ভিপি এস.এম ইনজামাম আকিব, জিএস আব্দুর রাজ্জাক শুভ, কলেজ ছাত্রলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক তানভীরুল হক ফাহিম, উপ-প্রচার সম্পাদক শাহাদাত হোসেন রাকিব; বাকলিয়া শহীদ এন.এম.জে কলেজ ছাত্রলীগ নেতা শাকিল আরিফ, মোহাম্মদ ইউনুস, সাব্বির আলম সোহাগ, ভিকি দেব সানি।

উল্লেখ্য গত ৫ নভেম্বর দিবাগত রাতে সাইফুল আলম লিমন কে তার বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ। পরদিন ৬ নভেম্বর অস্ত্র আইনে করা একটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করা হয় সাইফুল আলম লিমন কে।

নাজেহাল অবস্থা ফুটপাতের, ক্ষোভ পথচারীদের

চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন ফুটপাতের অবস্থা নাজেহাল, পথচারীরা শিকার হচ্ছেন দুর্ঘটনার।

আজ (২২ নভেঃ) চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায় রাস্তার পাশে পথচারীদের নিরাপদে চলাচলের জন্য নির্মিত ফুটপাতের অবস্থা নাজেহাল। এইসবের নির্দিষ্ট রক্ষণাবেক্ষণ ও স্লেপ না থাকায় প্রতিনিয়তই পথচারীরা শিকার হচ্ছেন বিভিন্ন দুর্ঘটনার। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের এই সমস্যা সমাধানে কোন উদ্দ্যেগ না থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করছেন এই শহরের বাসিন্দাগণ।

পান্থজন নিউজ'র অনুসন্ধানে এক পথচারী বলেন, এই ফুটপাত গুলোতে হাটাচলা করতে গিয়ে স্লেপ না থাকায় অনেকেই অজ্ঞাতবসত গর্তে পড়ে যায় তাছাড়া, নিচে নালা থাকায় বিশ্রী দুঃগন্ধ বের হওয়াতেও খুব অস্বস্তি বোধ হয়।

এই বিষয়ে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান প্রকৌশলীর সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করা চেষ্টা করা হলে ফোনে পাওয়া যায়নি।  

লিমনের মুক্তির দাবি নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরীর

 

সাবেক ছাত্রলীগ নেতা লিমনের মুক্তির দাবি জানান চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী। কোতোয়ালি থানা যুবলীগ,সেচ্ছাসেবকলীগ,শ্রমিকলীগ ও ছাত্রলীগের ব্যানারে আয়োজিত মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশের শেষে এক সমাপনী বক্তব্যে তিনি এই দাবি জানান। এছাড়াও আরো বলেন আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে যে ষড়যন্ত্র হচ্ছে তা প্রতিহত করার জন্য সকল স্তরের কর্মীকে রাজপথে সজাগ থাকতে হবে 
বৃহস্পতিবার (১৯ নভেম্বর) চট্টগ্রাম নগরীর এম. এ আজিজ স্টেডিয়ামের বিপরীতে শিশু পার্কের সামনে মানববন্ধনটি শুরু হয়। পরবর্তীতে মানববন্ধন শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয় যেটি নগরীর বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিণ করে করে চট্টেশ্বরী মোড়ে এসে শেষ হয়।
কোতোয়ালি থানা যুবলীগ নেতা ফয়সাল মান্নানের সভাপতিত্বে ও সাবেক চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগ নেতা মেহেদী হাসান নিপুর সঞ্চালনায় আয়োজিত উক্ত মানববন্ধনে   উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক কার্যকরী সদস্য ও নগর যুবলীগ নেতা শরীফ আহমেদ, চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের কার্যকরী সদস্য ইফতেখার হোসাইন শায়ন,সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আবরার আরিফ,  যুবলীগ নেতা আলাউদ্দিন আলো,জাফর চট্টগ্রাম পলিটেকনিক্যাল ইনস্টিটিউটের সাবেক আইন বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আবদুল মালেক,সিটি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম,চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মোঃ বেলাল,সরকারি কমার্স কলেজ ছাত্রলীগ  নেতা রবিউল হোসেন রবিন, পোর্ট সিটি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি কাজীম উদ্দিন,পোর্ট সিটি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়াহেদ বুলবুল অর্পণ, পোর্ট সিটি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি অনিকমান বড়ুয়া,চট্টগ্রাম পলিটেকনিক্যাল ইনস্টিটিউটের সাবেক সহ- সম্পাদক মোঃ তৌহিদুল ইসলাম,পোর্ট সিটি বিশ্ববিদ্যালয়  
ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নিঝুম পারিয়াল রাজ,  ছাত্রলীগ নেতা হাবিব রনি, সদরঘাট থানা ছাত্রলীগ নেতা এবি এস বাবর, ছাত্রলীগ  নেতা মিসকাত আলভী,শাইরা রহমান, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ নেতা মোঃ আল মামুন সরকার, এন. আই.টি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি খালিদ হোসাইন অন্তর,খুলশী থানা ছাত্রলীগ নেতা- শামীমুর রহমান,আরাফাত ইয়াছিন,আবু তালহা সিফাত, ইরফান নেহাল
ডবলমুরিং থানা ছাত্রলীগ নেতা ইয়াছিন জামান জনি প্রমুখ। 
এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন কোতোয়ালি থানা যুবলীগ নেতা ইরফান আল- আমিন,মনিরুল ইসলাম, সামাদান নাহিয়ান,ফারুক ইসলাম। কোতোয়ালি থানা ছাত্রলীগ নেতা আহাদ মাহমুদ শুভ,অমর্ত্য মজুমদার, প্রান্ত তালুকদার ,আলাউদ্দিন হৃদয়,  ওয়েন রবার্ট, অর্ণব বড়ুয়া, ইন্দ্রনীল প্রতীক, আদনান জাদিদ,মোঃ মহিউদ্দিন,মোঃ আকাশ, নন্দন পাল,ইভান উৎস,সুদীপ্ত মিত্র,   রাকিবিল কবির চৌধুরী,ইমতিয়াজ আহমেদ।

সাবেক ছাত্রনেতা সাইফুল আলম লিমনের মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ।

সাবেক ছাত্রনেতা ও যুব সংগঠক সাইফুল আলম লিমনের মুক্তির দাবিতে চান্দগাঁও থানা যুবলীগ,স্বেচ্ছাসেবকলীগ,শ্রমিকলীগ ও ছাত্রলীগের উদ্যোগে আফিয়া আনজুমান বৃষ্টির সঞ্চালনায়, খালিদ হোসাইন অন্তরের সভাপতিত্বে এক বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ আয়োজন করা হয়।
উক্ত আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন চান্দগাঁও থানা ছাত্রলীগ নেতা নাইম চৌধুরী ফয়সাল, মো.খাত্তাব,সাইমন সাইফ,মোহাম্মদ শাহিন,মো.কায়সার ও আবরার শরিফ সহ আরো ছাত্রনেতা।

গত ৬ নবেম্বর সাইফুল আলম লিমনকে গ্রেফতার দেখানো হলে এর প্রতিবাদে এইভাবেই চট্টগ্রামের সর্বত্র তার অনুসারী ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রাম গড়ে তোলে।
এর ধারাবাহিকতাই গতকাল ১৭ নবেম্বর এক বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ আয়োজন করে চান্দগাঁও থানা যুবলীগ,স্বেচ্ছাসেবকলীগ,শ্রমিকলীগ ও ছাত্রলীগের উদ্যোগে।

উক্ত আয়োজনে আরো উপস্থিত ছিলেন ইফতেখার হোসাইন শায়ান,মো.জাহাঙ্গীর আলম,মো.বেলাল,তৌহিদুল ইসলাম,রবিউল হাসান রবিন,
নিজুম পারিয়াল রাজ,হাবিব রনি,এবিএস বাবর, আহাদ মাহমুদ শুভ,রাহুল খাস্তগীর,মো.শামীম,তাহমিদ বিন জামাল,অর্ণব বড়ুয়া,শতদ্রু শর্মা,শাইরা রহমান,সাইফুর রহমান আকাশ,মো.সাকিব।

যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে সাবেক ছাত্রনেতা সুমন

সদ্য ঘোষিত বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হলেন বাঁশখালীর সন্তান,বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি তরুণ রাজনীতিবিদ রিয়াজ উদ্দীন চৌধুরী সুমন।

আজ যুবলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলের সাক্ষরিত প্যাড়ে কমিটি ঘোষনা করেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ
এর সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

বাঁশখালী এই তরুণ রাজনীতিবিদ রিয়াজ উদ্দীন চৌধুরী সুমন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল ছাত্রলীগের সভাপতি,বাংলাদেশ
ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য ছিলেন।

তরুণ এই রাজনীতিবিদ এর বাড়ি বাঁশখালীর বৈলছড়ি ইউনিয়নের।তার পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহফুজুর রহমান চৌধুরী।

উল্লেখ্য গত বছর ২৩ নভেম্বর শেখ ফজলে শামস পরশ কে চেয়ারম্যান এবং মাইনুল হোসেন খান নিখিলকে সাধারণ সম্পাদক করে বাংলাদেশ যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষনা হয়।

সাবেক মেয়রের সুস্থতা কামনায় ওয়ার্ড যুবলীগ ও ছাত্রলীগের উদ্যোগে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক চসিক মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দিনের সুস্থ কামনায় ওয়ার্ড যুবলীগ ও ছাত্রলীগের যৌথ উদ্যোগে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত।  

আজ শনিবার  (৭ই নভেম্বর) নগরীর ২০নং দেওয়ান বাজারস্থ খলিফাপট্টি জামে মসজিদে ওয়ার্ড যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতা কর্মীদের উদ্যোগে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এই সময় ২০নং দেওয়ান বাজার ওয়ার্ডের যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিতি ছিলেন।  

উল্লেখ্য, নগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিন গত ৩রা নভেম্বর করোনায় আক্রান্ত হয়ে নগরীর পার্ক ভিউ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে৷  বর্তমানে তিনি আশংকা মুক্ত বলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা জানান।

পাঁচলাইশ ও চকবাজার থানা আওয়ামীলীগ এবং অঙ্গসংগঠনের উদ্যোগে সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের সুস্থতায় দোয়া ও মিলাদ মাহফিল।

পাঁচলাইশ ও  চকবাজার থানা যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও ছাত্রলীগের উদ্যোগে  বীর চট্টলার অভিভাবক "জননেতা আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দিন" এর সুস্থতা কামনায় মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত মিলাদ মাহফিলে উপস্তিত ছিলেন 
৮নং শুলকবহর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি মোহাম্মাদ আতিকুর রহমান,  ৮নং শুলকবহর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ এর সাধারন সম্পাদক শেখ সরওয়ার্দী সাবেক দপ্তর সম্পাদক এস এম ওয়াজেদ,এরশাদুল ইসলাম মুন্না, মো রুবেল,মহানগর যুবলীগ নেতা  মোহাম্মাদ ফারক চৌধুরী,মহানগর সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা ফকরুল হাসান ফরহান,মহানগর ছাত্রলীগের উপ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক রাশেদ চোধুরী,সাইফুল ইসলাম শিমুল,এস এম নেওয়াজ,তানজিল চোধুরী,মোঃ মুহিবুল্লা, মো আদনান, আনাস সেলিম নাবিল, সাবাদ বিন বিটু, সাজ্জাদ শাহ,রায়হান, সৈকত, বেলাল, আয়াত, জয়,, থানা ছাত্রলীগ নেতা, মুহতাসিম নোমানী,ইয়াসির আরাফাত রাব্বি,আবু সুফিয়ান,ম মোজাম্মেল  হোসেন,ওমর ফারুক,রাফি,সাকিব,,,বাবলু,রাকিব,সজীব,শাবাব,সামির,জুবায়েদ,রুবায়েত,জিসান।প্রমুখ।
উক্ত মিলাদ মাহফিল পরিচালনা করেন ইসলামী চিন্তাবিদ ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব মাওলানা আব্দুল আল কাদেরী।

চট্টগ্রাম প্রতিদিন পাতার আরো খবর