সোমবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২০
ভারতে করোনায় মৃত্যুর এক তৃতীয়াংশই মহারাষ্ট্রে

ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪১ হাজার ৩২২ জন। এ নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯৩ লাখ ৫১ হাজার ১০৯ জনে। এ সময়ে দেশটিতে মারা গেছেন ৪৮৫ জন। এখন পর্যন্ত মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়াল এক লাখ ৩৬ হাজার ২০০ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ৪১ হাজার ৪৫২ জন সুস্থ হয়েছেন। আর সুস্থতার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮৭ লাখ ৫৯ হাজার ৯৬৯ জন।

শনিবার (২৮ নভেম্বর) ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক বুলেটিনে করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতির সর্বশেষ এ তথ্য জানানো হয়েছে।

করোনায় ভারতে মোট মৃত্যুর এক তৃতীয়াংশই মহারাষ্ট্রে। রাজ্যটিতে এখন পর্যন্ত ৪৬ হাজার ৮৯৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যু তালিকায় দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে থাকা কর্নাটক এবং তামিলনাড়ুতে সাড়ে ১১ হাজার ছাড়িয়েছে। এরপর রয়েছে দিল্লি, পশ্চিমবঙ্গ, উত্তরপ্রদেশ ও অন্ধ্রপ্রদেশ।

চলতি মাসে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির সঙ্গে দিল্লিতে বেড়েছে দৈনিক মৃত্যু সংখ্যা। ২৪ ঘণ্টায় দেশটির রাজধানীতে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৯৮ জনের, যা গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটির মধ্যে সর্বোচ্চ।

পশ্চিমবঙ্গে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩ হাজার ৪৮৯ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪ লাখ ৭৩ হাজার ৯৮৭। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে মৃত্যু হয়েছে ৪৬ জনের। এখন পর্যন্ত রাজ্যটিতে মোট মৃত্যু ৮ হাজার ২৭০।

বাইডেনকে ফোন করে শুভেচ্ছা জানালেন মোদি

নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে সরাসরি ফোন করে শুভেচ্ছা জানালেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) রাতে বাইডেনকে ফোন করেন তিনি। ফোনে ভারত-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক আরও মজবুত করা নিয়ে দুজনের কথা হয়।

বুধবার (১৮ নভেম্বর) ভারতীয় গণমাধ্যম জি নিউজের একটি প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে যুক্ররাষ্ট্রে নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূত তরণজিৎ সিং সাধু জানিয়েছেন, স্বাস্থ্য সম্পর্কিত বিষয়ে তাদের দু'জনের মধ্যে কথা হয়েছে। করোনা ভ্যাকসিনের প্রসঙ্গ নিয়েও তারা আলোচনা করেছেন। পরে বাইডেনের সঙ্গে ফোনালাপ নিয়ে একটি টুইটও করেছেন নরেন্দ্র মোদি।

টুইটে নরেন্দ্র মোদি লিখেছেন, অভিনন্দন জানানোর জন্য নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে ফোনে কথা বললাম। ভারত-যুক্তরাষ্ট্র কৌশলগত সম্পর্কের প্রতিশ্রুতি পালনে আমরা আরও একবার প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়েছি। করোনাভাইরাস মহামারি, জলবায়ু পরিবর্তন এবং ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে সহযোগিতার মতো বিষয়ে দু’পক্ষের অগ্রাধিকার এবং উদ্বেগ নিয়ে আলোচনা করেছি।

ফোনালাপে ভাইস প্রেসিডেন্ট কামালা হ্যারিসের প্রসঙ্গ নিয়েও আলোচনা হয়। তাকেও শুভেচ্ছা জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী। এ বিষয়ে পরে আরও একটি টুইট করেন মোদি।

কামালা হ্যারিসের বিষয়ে টুইটে মোদি লেখেন, নবনির্বাচিত মার্কিন ভাইস-প্রেসিডেন্ট কামালা হ্যারিসকেও উষ্ণ অভিনন্দন জানানোর কথা বলেছি। ভারত-যুক্তরাষ্ট্র কমিউনিটির কাছে তার সাফল্য অত্যন্ত গর্বের এবং অনুপ্রেরণামূলক। যা ভারত-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কের ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ চালিকাশক্তি।

যুদ্ধে জড়াচ্ছে ভারত-পাকিস্তান

জীবন দিয়ে হলেও মাতৃভূমিকে রক্ষা করবো, ভারতকে হুঁশিয়ারি দিয়ে সতর্ক করেছে পাকিস্তান। বৃহস্পতিবার ‘লাইন অব কন্ট্রোলে’ দু’দেশের পাল্টাপাল্টি হামলায় হতাহতের ঘটনায় নয়াদিল্লিকে সতর্কবার্তা দিয়েছে ইসলামাবাদ।

শুক্রবার (১৩ নভেম্বর) পাক মিলিটারিয়া উইং এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘ভারতীয় গণমাধ্যমে এসেছে দু’পক্ষের লড়াইয়ে ভারতীয় সেনারাই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে নয়াদিল্লি যদি সীমান্তে উত্তেজনার পরিস্থিতি সৃষ্টি করে আমরা একইভাবে জবাব দেব’। 

সামরিক বাহিনীর পক্ষ থেকে বিবৃতিতে দাবি করে, ‘ভারতীয় বাহিনী বিনা উস্কানিতে সীমান্তে বসবাসরত নিরীহ মানুষদের লক্ষ্য করে মর্টার ও গুলি বর্ষণ করেছে। হামলার জবাবও দেয় পাকি বাহিনী। কিন্তু নিজেদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতিতে জনগণের সামনে অপদস্থ হয়েছে ভারতীয় বাহিনী। নিজেদের ভুল না বের করে তারা আবারো সীমান্ত এলাকায় যুদ্ধে মেতেছে।’

পাক সেনারা ভারতীয় হামলার উপযুক্ত জবাব দিয়েছে বলে জানায় পাক আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর- আইএসপিআর। বিবৃতিতে আইএসপিআর উল্লেখ করে, পাল্টাপাল্টি হামলায় বেশিরভাগ ভারতীয় সেনা প্রাণ হারিয়েছে। তবে এ নিয়ে বরাবরের মতোই মিথ্যাচার করছে নয়াদিল্লি। পাক বাহিনী কখনো প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে যুদ্ধে জড়াতে চায় না। শান্তি বজায় রাখাই তাদের আদর্শ বলেও উল্লেখ করে আইএসপিআর। তবে ভারত যদি নিজেদের আচরণ না পাল্টায় এবং উস্কানিমূলক আচারণ অব্যাহত রাখে পাকিস্তান যথাযথ জবাব দিতে প্রস্তুত।

২০২০ সালে ২ হাজার ১৫০ বারের বেশি যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করেছে ভারত। যা আঞ্চলিক শান্তি ও সুরক্ষার জন্য হুমকি হিসেবে দেখছে পাকিস্তান।

এদিকে ভারতীয় বাহিনীর বরাতে দেশটির গণমাধ্যম বলছে, বিনা প্ররোচনায় জম্মুর পুঞ্চ এবং উত্তর কাশ্মীরের গুরেজ থেকে উরি পর্যন্ত এলাকায় হামলা চালায় পাকিস্তানি সেনা। তাতে ভারতের চার সেনা ও এক বিএসএফ সাব ইনস্পেক্টর-সহ ১১ জন নিহত হন। বাকি ৬ জন গ্রামবাসী।

নিহত সেনাদের মধ্যে সুবোধ ঘোষ পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা। নিহত আর এক সেনার নাম হরধনচন্দ্র রায়। তবে তিনি কোন রাজ্যের বাসিন্দা, তা এখনও স্পষ্ট নয়। বাকি দুই সেনার পরিচয় এখনও প্রকাশ করেনি সেনাবাহিনী। গুরুতর আহত হয়েছেন বেশ কয়েক জন জওয়ান ও স্থানীয় বাসিন্দা। ভারতের সীমান্ত বাহিনীর পাল্টা হামলায় ৮ জন পাক সেনা নিহতের কথা উল্লেখ করে গণমাধ্যমগুলি।

বিশ্বের অন্যতম স্পর্শকাতর সীমান্তগুলোর মধ্যে একটি ‘লাইন অব কন্ট্রোল’। হঠাৎ এই সীমান্তে প্রতিবেশী দু’দেশের মধ্যে উত্তেজনা আঞ্চলিক অস্থিরিতা বাড়ার আশঙ্কা করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। দু’দেশের রক্তক্ষয়ী সংঘাতে সীমান্ত এলাকার বেসামরিক মানুষের মৃত্যু হার বাড়বে।

এদিকে, ভারতের প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা পাকিস্তানের দিকে দোষ চাপিয়ে দাবি করছেন, শীতে কাশ্মীরে তীব্র তুষারপাতের আগেই জঙ্গি অনুপ্রবেশে লক্ষ্য করেই নিয়ন্ত্রণরেখায় তৎপরতা অনেকটাই বাড়িয়েছে পাকিস্তান। তবে ইসলামাবাদ কখনো সফল হবে না বলেও জানায় ভারত।

বিচ্ছেদের পথে ট্রাম্প- ম্যলানিয়া

মার্কিন নির্বাচনে হেরে এমনিতেই মন ভালো নেই ডোনাল্ড ট্রাম্পের। এরই মধ্যে শোনা গেল তার বৈবাহিক জীবন নিয়ে চরম হতাশাজনক এক খবর। ব্রিটিশ গণমাধ্যম ডেইলি মেইলের খবর অনুযায়ী, ট্রাম্পকে তালাক দেওয়ার জন্য অধীর আগ্রহে দিন গুনছেন মেলানিয়া।

ওই সংবাদপত্রের খবর অনুযায়ী, ট্রাম্প পরিবার ঘনিষ্ঠ স্টেফানি ওয়ালকফের দাবি, এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। কাউন্টডাউন শুরু করে দিয়েছেন মেলানিয়া ট্রাম্প। হোয়াইট হাউস থেকে ট্রাম্প বিদায় নিলেই তাঁর সঙ্গে সম্পর্ক ছেদ করবেন মেলানিয়া। প্রসঙ্গত, স্টেফানিকে মেলানিয়ার পরামর্শদাতা হিসেবে নিয়োগ করেছিলেন ট্রাম্প।

ট্রাম্প নির্বাচনে জিততে পারেন- এটা ছিল মেলানিয়ার কাছে অভাবনীয়। অন্যদিকে ট্রাম্পের হেরে যাওয়ার পর এখনও মুখ খোলেননি মার্কিন ফার্স্টলেডি মেলানিয়া ট্রাম্প।

স্টেফানি ওয়ালকফের আরও দাবি, হোয়াইট হাউসে ইতিমধ্যেই শয়নকক্ষ আলাদা করে ফেলেছেন মেলানিয়া। দুজনের সম্পর্ক এখনও এক ঠুনকো অবস্থায় মধ্যে দিয়ে চলেছে।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের আরও এক প্রাক্তন সহযোগী ও রাজনৈতিক পরামর্শদাতা দাবি করেছেন, ডোনাল্ড ও মেলানিয়ায় ১৫ বছরের সম্পর্ক শেষ। মেলানিয়া এখন সময় গুনছেন কখন ট্রাম্প হোয়াইট হাউস ছেড়ে বেরিয়ে আসেন।

ইসলামের প্রতি সর্বোচ্চ শ্রদ্ধা আছে

ইসলামের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা রয়েছে ফ্রান্সের। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী জিন-ইয়ভেস লি ড্রায়ান কায়রো সফরকালে এই মন্তব্য করেছেন।

দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এমন সময়ে এই মন্তব্য করলেন যখন প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রো ইসলাম নিয়ে বেফাঁস মন্তব্য করার দায়ে ইসলাম বিশ্বে প্রবল সমালোচনার মুখে।

এরই মধ্যে মিশরের প্রেসিডেন্ট আব্দেল-ফাতেহ আল-সিসি এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী সামেহ শৌক্রাইয়ের সঙ্গে সাক্ষাত করেছেন লি ড্রায়ান

সাক্ষাতের পর লি ড্রায়ান বলেছেন, আমাদের প্রথম একটি নীতি রয়েছে সেটি হচ্ছে ইসলামের প্রতি সর্বোচ্চ শ্রদ্ধা।

তিনি বলেন, আমি আরো বলতে চাই মুসলিমরা ফ্রান্সের সমাজে পুরোপুরি অংশীদার।

এছাড়া ফ্রান্সের এই পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, দ্বিতীয় বার্তা হলো আমরা আমাদের মাটি সন্ত্রাসবাদের হুমকির মুখোমুখি, সেটি হল ধর্মান্ধতা। এই হুমকি অন্যত্রও এবং এটি 'কমন' লড়াই। সিজিটিএন

মিয়ানমারে জাতীয় নির্বাচন আজ

মিয়ানমারে জাতীয় নির্বাচন আজ রোববার (৮ নভেম্বর)। দেশটির ৩ কোটি ৭০ লাখ মানুষ এতে ভোট দেবেন। ছোট বড় মিলিয়ে ৯০টি দল এতে অংশ নিচ্ছে। জাতীয় নির্বাচন বাদেও রাজ্যগুলোতেও ভোট হবে এদিন।

বিশ্লেষকদের ধারণা, দেশব্যাপী রোহিঙ্গাবিরোধী জনমত গড়ে তুলে এবারও ক্ষমতায় আসতে পারেন অং সান সু চির দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি-এনএলডি।

প্রায় ৫০ বছর সামরিক শাসনের অবসান ঘটিয়ে ২০১০ সালে গণতন্ত্রের পথে হাঁটতে শুরু করে মিয়ানমার। গৃহবন্দি অবস্থা থেকে মুক্তি পান দেশটির জনপ্রিয় নেত্রী সু চি।

সেনাবাহিনী তৎকালীন বার্মার ক্ষমতা দখল করে মূলত ১৯৬২ সালে। এরপর ১৯৯০ সালের ২৭ মে সামরিক শাসকদের তত্ত্বাবধানে মিয়ানমারে প্রথম সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সেই নির্বাচনে সু চি'র দল জয় পেলেও ২০১১ সাল পর্যন্ত রাষ্ট্র পরিচালনা করে সেনাবাহিনী। ২০০৮ সালে দেশটিতে সংবিধান গৃহীত হয়।

২০১৫ সালে অনুষ্ঠিত হয় মিয়ানমারের সাধারণ নির্বাচন। ওই নির্বাচনে বড় জয় পায় সু চি'র দল ‘ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি’ (এনএলডি)। কিন্তু রোহিঙ্গা ইস্যুতে আন্তর্জাতিক মহলে ব্যাপক সমালোচনার শিকার হন সু চি। এমনকি আন্তর্জাতিক আদালতে বিরুদ্ধে গণহত্যার অভিযোগও ওঠে শান্তিতে নোবেলজয়ী সু চি'র বিরুদ্ধে।

দেশটির ক্ষমতার কেন্দ্রবিন্দুতে সেনাবাহিনীর শক্ত নিয়ন্ত্রণ থাকায় কখনোই বিতর্ক বন্ধ হয়নি মিয়ানমারকে ঘিরে। ২০১৭ সালে রাখাইন রাজ্যে সেনাবাহিনীর অমানবিক নির্যাতনে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় প্রায় সাড়ে ৭ লাখ রোহিঙ্গা।

ভারী অস্ত্র হাতে রাস্তায় ট্রাম্পের সমর্থকেরা, সংঘাতের আশংকা

বাইডেন যুক্তরাষ্ট্রকে ধ্বংস করে দিচ্ছে এমন অভিযোগ তুলে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের রাস্তায় মহড়া দিচ্ছে ট্রাম্পের সশস্ত্র সমথর্করা। সদ্যবিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সশস্ত্র সমর্থকরা সয়ংক্রিয় ভারী অস্ত্র নিয়ে টহল দেয়ার খবর প্রকাশ করেছে বিভিন্ন মার্কিন গণমাধ্যম। এতে যে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনার আশঙ্কায় ভয়ে আছেন সাধারণ মানুষ।

জর্জিয়া, অ্যারিজোনা ও পেনসিলভানিয়ার মতো যেসব দোদুল্যমান রাজ্যে জো বাইডেন হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর জয়ী হয়েছেন, সেসব রাজ্যের বিভিন্ন সড়কে এ ধরনের সশস্ত্র মহড়া দিতে দেখা গেছে।

ট্রাম্পের সমর্থনে রাস্তায় নেমে আসা তার সমর্থকরা বলেন, ‘আমরা যুদ্ধে যাচ্ছি বলেই আমাদের কাছে এসব ভারী অস্ত্র রয়েছে’।

জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের ভারী অস্ত্রে সজ্জিত এসব মানুষ জানান, নিরাপত্তাগত কারণে এবং ‘বাইডেনের হাত থেকে আমেরিকাকে রক্ষা করতেই’ তারা অস্ত্র হাতে তুলে নিয়েছেন। অ্যারিজোনা ও পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যের রাজপথেও একই ধরনের দৃশ্য দেখা যায়।

রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ের পর স্থানীয় সময় শনিবার সকালে যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হন ডেমোক্র্যাট দলীয় প্রার্থী জো বাইডেন। কিছু জায়গায় বাইডেনের সমর্থকদের সঙ্গে ট্রাম্পের সমর্থকারীদের হাতাহাতির খবর পাওয়া গেছে। বিভিন্ন জায়গায় উত্তেজনা বিরাজ করায় বাড়ানো হয়েছে নিরাপত্তা সদস্য।

ক্ষমতাসীন রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর ৫৩৮ ইলেকটোরাল ভোটের মধ্যে ২৭০টির বেশি এরই মধ্যে নিশ্চিত করেছেন বাইডেন। এতেই আমেরিকার ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হয়ে গেলেন জো বাইডেন।

বাইডেন ও কমলাকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ায় জো বাইডেন এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসকে অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

রোববার (৮ নভেম্বর) এক বার্তায় নবনির্বাচিত এ দুই নেতাকে অভিনন্দন জানান তিনি। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং থেকে পাঠানো প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, টানা চারদিনের অপেক্ষা ও নানা ধরনের নাটকীয়তা শেষে যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন ডেমোক্র্যাট নেতা জো বাইডেন। তার জয়ে দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত কমলা হ্যারিস। 

এই জয়ের ফলে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে তিনিই প্রথম নারী ভাইস প্রেসিডেন্ট, প্রথম অশ্বেতাঙ্গ এবং প্রথম এশীয় বংশোদ্ভূত ভাইস প্রেসিডেন্ট।

যুক্তরাষ্ট্রের নিয়ম অনুযায়ী ২০২১ সালের ২০ জানুয়ারি শপথের পর দায়িত্ব নেবেন জো বাইডেন। এর মাধ্যমে প্রথম মেয়াদেই হোয়াইট হাউজে সবচেয়ে বয়স্ক প্রেসিডেন্ট হিসেবে যাচ্ছেন ৭৭ বছর বয়সী বাইডেন।

জয়ের দ্বার প্রান্তে বাইডেন

মার্কিন নির্বাচনে হোয়াইট হাউসের ক্ষমতা দখল নিয়ে ট্রাম্প-বাইডেনের মধ্যে তুমুল ভোটের লড়াই চলছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট হতে বাইডেনের দরকার আর ৬ ইলেকটোরাল ভোট। অপর দিকে ট্রাম্পের প্রয়োজন আরও ৫৬ ভোট। ডেমোক্রেটিক প্রার্থী জো বাইডেনের ইলেকটোরাল ভোটের সংখ্যা বেড়ে ২৬৪টিতে দাঁড়িয়েছে। বিপরীতে ট্রাম্পের অবস্থান ২১৪তে।

সে হিসেবে এখনই মোটামুটি বরা যায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ি হতে চলেছেন জো বাইডেন। মিশিগান, উইসকনসিনে জিতেছেন জো বাইডেন। অন্যদিকে শুধু নেভাদায় দুই প্রার্থীর ব্যবধান সবচেয়ে কম। ভোট গণনাও বাকি অনেক। সে হিসেবে বলতে গেলে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট কে হবেন সেই ভাগ্য ঝুলে আছে নেভাদায়। মিশিগান, উইসকনসিন ও নেভাদায় জিতলেই বাইডেনের ২৭০ এর কোটা পূর্ণ হবে। 

এদিকে, মিশিগান অঙ্গরাজ্যে ভোট গণনা বন্ধে মামলা করার কথা জানিয়েছে রিপাবলিকান পার্টির নির্বাচনী প্রচার শিবির। তবে সিএনএন জানিয়েছে, সংশ্লিষ্ট আদালতের কর্মকর্তা মর্গান অ্যাডামস জানিয়েছেন, এ ধরনের কোনো মামলার নথিপত্র আদালত পায়নি। 

নির্বাচনী ফল বিশ্লেষণে জানা গেছে, বেশিসংখ্যক অঙ্গরাজ্যে জয়ী হয়েছেন ট্রাম্প। কিন্তু সেগুলোতে ইলেকটোরাল ভোট কম। রিপাবলিকান প্রার্থী ২৩টি রাজ্যে বিজয়ী হয়েছেন। যার মধ্যে ফ্লোরিডা, টেক্সাস, ইন্ডিয়ানা, কেন্টাকি, মিসৌরি ও ওহাইও অন্যতম। ২০১৬ সালের নির্বাচনেও এসব রাজ্য দখলে নিয়েছিলেন ট্রাম্প। উইসকনসিনের ফলও প্রত্যাখ্যান করেছেন ট্রাম্প। এখানেও তিনি মামলার কথা বলেছেন।

বাইডেন ১৮টি রাজ্যে জয়ী হলেও সেগুলোকে ইলেকটোরাল ভোট বেশি। যার মধ্যে ক্যালিফোর্নিয়া, নিউইয়র্ক ও ওয়াশিংটন রয়েছে। ২০১৬ সালের নির্বাচনে হিলারি ক্লিনটন এসব রাজ্য থেকে জয়ী হয়েছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনী বিধি অনুযায়ী, পপুলার ভোটে যে জয়ী হবে তিনি প্রেসিডেন্ট হতে পারবেন না, যদি না ইলেকটোরাল কলেজ ভোট পক্ষে না থাকে। আগের নির্বাচনে হিলারি ক্লিনটন সাড়ে ২৯ লাখ ভোট বেশি পেয়েও জয়ী হতে পারেননি ট্রাম্পের সঙ্গে।