সোমবার, ৮ মার্চ, ২০২১
একজন নীতিনিষ্ঠ রাজনীতিক

২০১৯ সালের ৩ জানুয়ারি মারা যান পরীক্ষিত রাজনীতিক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। আজ তার দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী। রাজনীতিতে সততা ও স্বচ্ছতার উদাহরণ রেখে যান বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দু'বারের সফল এই সাধারণ সম্পাদক। সততাও যে অধিক শক্তিশালী, সৈয়দ আশরাফের রাজনৈতিক জীবন পর্যালোচনা করলে সেই সত্যই প্রতিভাত হয়। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতায় এলে মন্ত্রিসভায় এলজিআরডি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে তিনি দায়িত্বপ্রাপ্ত হন। সততার প্রতীক হিসেবে সৈয়দ আশরাফ তার মন্ত্রণালয়ের অসৎ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাছে নিজেকে তুলে ধরেন। এমনকি দলীয় সাধারণ সম্পাদক হিসেবেও তাকে ব্যবহার করে কেউ কোনো অনৈতিক সুবিধা নিতে পারেননি। সততার জোরে তিনি সবার হৃদয় জয় করেন। তিনি তার সততার গুণেই মানুষের অনুভূতিতে চির জাগরূক হয়ে আছেন। শুদ্ধ রাজনীতির নতুন পথ উন্মোচন করেছিলেন সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। মৃত্যুর পর তার নির্বাচনী এলাকা কিশোরগঞ্জ-হোসেনপুরের লাখ লাখ মানুষই শুধু নয়, ময়মনসিংহ বিভাগীয় শহরের জানাজায়ও কয়েক লাখ মানুষের সমাগম ঘটে। বাঁধভাঙা জোয়ারের মতো লাখ লাখ মানুষ প্রিয় নেতাকে শেষবারের মতো একনজর দেখতে কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক ও উপমহাদেশের বৃহত্তর ঈদগাহ শোলাকিয়া মাঠে ছুটে আসেন। মানুষের স্বতঃস্ম্ফূর্ত উপস্থিতি দেখে পূর্বনির্ধারিত কিশোরগঞ্জ পুরাতন স্টেডিয়ামের আয়োজন বাতিল করে স্থানীয় প্রশাসন তাৎক্ষণিক ঐতিহাসিক শোলাকিয়া মাঠে স্মরকালের সর্ববৃহৎ জানাজার আয়োজন করে।

সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ১৯৬৮ সালে ময়মনসিংহ জিলা স্কুল থেকে এসএসসি, ১৯৭০ সালে আনন্দমোহন কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে তিনি ভারতে চলে যান এবং মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয় অংশ নেন। স্বাধীনতা-উত্তর ১৯৭২ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে অনার্স কোর্সে ভর্তি হন। ১৯৭৫ সালে তিনি এক শিক্ষা সফরে লন্ডন যান। ওই সময় ১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে বাবা সৈয়দ নজরুল ইসলাম শহীদ হলে তিনি লন্ডনেই থেকে যান। ছাত্রজীবন থেকেই তিনি রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। ছাত্ররাজনীতি শেষে তিনি আওয়ামী লীগে যোগদান করেন। ১৯৯৬ সালে সাধারণ নির্বাচনে তিনি আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে কিশোরগঞ্জ সদর আসন থেকে জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এবং আওয়ামী লীগ সরকারের বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পান। ২০০১ সালে সাধারণ নির্বাচনে পুনরায় তিনি জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এবং আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এক-এগারোতে সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা গ্রেপ্তার হলে সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও দলীয় মুখপাত্র হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আবদুল জলিল কারাগারে থাকায় তিনি ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব নেন। সেই সময়ই তার দূরদর্শী ভূমিকার কারণে তিনি আলোচিত হয়ে ওঠেন। ২০০৮ সালের সাধারণ নির্বাচনে তিনি পুনরায় কিশোরগঞ্জ সদর ও হোসেনপুর নির্বাচনী এলাকা থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। পরে তিনি আওয়ামী লীগ সরকারের স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়নমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। সর্বশেষ তিনি জনপ্রশাসনমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৫২ সালের পহেলা জানুয়ারি জন্ম নেওয়া সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম মুক্তিযুদ্ধকালীন বাংলাদেশ সরকারের অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলামের চার ছেলে ও দুই মেয়ের মধ্যে সবার বড় ছিলেন। সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনে ক্ষমতার দম্ভ তাকে স্পর্শ করতে পারেনি। ২০১৮ সালের নির্বাচনে সৈয়দ আশরাফ অসুস্থতার কারণে মাঠে অনুপস্থিত থাকলেও বিপুল ভোটের ব্যবধানে তিনি বিজয়ী হন। কিশোরগঞ্জের আধুনিকায়নে তার ভাবনা ছিল দূরদর্শী। এ মাটির ফুসফুস বা প্রাণপ্রবাহ নরসুন্দার নাব্য ফিরে পেতে তারও আন্তরিকতার কোনো অভাব ছিল না। এ জন্য উদ্যোগও তিনি গ্রহণ করেছিলেন। শহরের উন্নয়ন, সৌন্দর্যবর্ধন ও আধুনিকায়নে একটি মহাপরিকল্পনা নিয়েছিলেন তিনি। তার আগ্রহ ও ভূমিকার কারণে কিশোরগঞ্জে গড়ে উঠেছে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল। সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম মনে করতেন, জনগণই রাজনৈতিক দলের গণভিত্তি। কোনো বাহিনীর ওপর নির্ভর করে গণতান্ত্রিক সরকার পরিচালনা ও সুশাসন প্রতিষ্ঠা সম্ভব নয়। গভীর শ্রদ্ধায় তাকে স্মরণ করি।

ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের বিক্ষোভ মিছিল।

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ চট্টগ্রাম মহানগর শাখার উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর ভাষ্কর্য ভাঙার পতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল শেষে আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশ সাবেক ছাত্রনেতা মহানগর যুবলীগ নেতা দিদারুল আলম দিদারের সভাপতিত্বে সাবেক ছাত্রনেতা ও মহানগর যুবলীগ নেতা সুমন দেবনাথের পরিচালনায় প্রেস ক্লাব চত্বরে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক সদস্য আবদুল মান্নান ফেরদৌস, মহানগর যুবলীগ সদস্য ও সাবেক কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, সাবেক ছাত্রনেতা জহির উদ্দিন মােহাম্মদ বাবর, মীর আবদুর রহমান মামুন, মহানগর যুবলীগ সদস্য আবদুর রহিম, লিটন রায় চৌধুরী, সাবেক ছাত্রনেতা গিয়াস উদ্দিন, ওয়াহিদুল আলম শিমুল, মহানগর যুবলীগ সদস্য জাবেদুল আলম সুমন, সাখাওয়াত হােসেন সাকু, খােরশেদ আলম রহমান, নঈম উদ্দিন খান, তানভীর আহমেদ রিংকু, সাবেক ছাত্রনেতা এড, মাহবুবুব উদ্দিন, তাজ উদ্দিন রিজভী, মো. সাইফুদ্দিন, এম.এ মান্নান শিমুল, মাে. ফারুক চৌধুরী, জসিম উদ্দিন মিঠুন, আহমেদ নুর, মাকসুদুল আলম, মাসুদ আকবরী এড. মাে. কায়সার, ইসমাইল হোসেন, এস,এম নাছির উদ্দিন, ইশতিহার উদ্দিন পারভেজ, ফজলে হাসান, সাহেদ হােসেন টিটু, সাহেদ, লােকমান হােসেন, সুমন চৌধুরী, হেলাল উদ্দিন, আবু তাহের, শরফরাজ নেওয়াজ খান, জাহাঙ্গীর আলম, রিদোয়ান ফারুক, আতিকুর রহমান , আবু সুফিয়ান, আবদুল কাদের, হেলাল উদ্দিন, সাহেদ মিজান, ফিরােজ খান, আতিকুল ইসলাম মাসুম, আলমগীর টিপু, ফরহাদ হােসেন ফরহান, হারুন অর রশীদ, কামরুজ্জামন, শফিকুর রহমান তাপস, শহিদুল আলম মিন্টু, আরিফ আলী রাজন, শেখ নাসির উদ্দিন আরজু, মঞ্জুরুল ইসলাম, মাে. জাহাঙ্গীর হােসেন, ইকবাল হােসেন জুয়েল, ডা, বাবর চৌধুরী বাবু, এড. টিপুশীল জয়দেব, আমিনুল নিজামী রিফাত, এড. ওসমান উদ্দিন, এড. শান্তনু রায়, হাবিবুর রহমান, শফি উদ্দিন বাপ্পী, আলাউদ্দিন আলো, মনির হােসেন, আলােড়ন বিশ্বাস ফ্লাওয়ার, তানভীর হােসেন শাওন, আবদুল শুক্কুর, আখতারুজ্জামান, রিপন বিশ্বাস, নাঈম উদ্দিন, ইমন খান, মে, ফয়সাল, মাে. কায়সার প্রমুখ।

নেতৃবৃন্দ বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে এখনাে দলের কর্মীরা নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। বাড়াবাড়ি করলে যুবলীগের কর্মীরা বসে থাকবে না। জাতির পিতার প্রতিকৃতি প্রদর্শন ও সংরক্ষণ সাংবিধানিকভাবেই বিধিবদ্ধ বিষয়। তাই বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের অবমাননা প্রকারন্তরে সংবিধানের অবমাননা। এতে যারা জড়িত সেই অপরাধীদের শাস্তি পেতেই হবে। কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের অবমনাননা ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ বলে অভিহিত করে নেতৃবৃন্দরা আরাে বলেন, ইতিহাসের মীমাংসিত বিষয় নিয়ে একটি উগ্র সাম্প্রদায়িক গােষ্ঠী দেশব্যাপি ধর্মীয় বিভেদ সৃষ্টির অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। দেশ ও জাতির শ্রেষ্ঠ অর্জন স্বাধীনতার স্থপতি, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্যের অবমাননা দেশের চেতনার মর্মমূলে আঘাত হেনেছে। দেশের সাধারণ মানুষ এতে ক্ষুব্ধ। বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ গায়ে পড়ে আক্রমন করে না। তবে আক্রমনের শিকার হলে প্রতিরােধ গড়ে তুলতে এক বিন্দুও পিছপা হয় না। নেতৃবৃন্দ হুশিয়ারী উচচারণ করে বলেন, ধৈর্যের বাঁধ ভেঙ্গে দেবেন না। কোন নির্দিষ্ট গোত্র বা সম্প্রদায়ের স্বার্থের কাছে স্বাধীনতা জিম্মি হতে দেবেন না। মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের সকল শক্তিকে সম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান এ দোষীদের শাস্তি দাবি করে।

পিছিয়েছে গ্যাটকো মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানি

গ্যাটকো দুর্নীতি মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াসহ অন্য আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি পেছানো হয়েছে। আগামী ২২ ডিসেম্বর শুনানির নতুন দিন ধার্য করেছেন আদালত।

বুধবার (১৮ নভেম্বর) মামলা অভিযোগ গঠনের শুনানির দিন ধার্য থাকলে অসুস্থতার কারণে আদালতে উপস্থিত ছিলেন না বিএনপির চেয়ারপারসন। অনুপস্থিতির জন্য তার আইনজীবী জিয়া উদ্দিন জিয়া আদালতের কাছে সময় প্রার্থনা করেন। খালেদা জিয়ার আইনজীবীর প্রার্থনার পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা তিন নম্বর বিশেষ আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক নজরুল ইসলাম শুনানি মুলতবি করে নতুন দিন ধার্য করেন।

২০০৭ সালের ২ সেপ্টেম্বর দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উপ-পরিচালক গোলাম শাহরিয়ার চৌধুরী চারদলীয় জোট সরকারের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া, তার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় এ মামলা দায়ের করেন।

মামলার পরদিন খালেদা জিয়া ও কোকোকে গ্রেফতার করা হয়। ওই বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর মামলাটি অন্তর্ভুক্ত করা হয় জরুরি ক্ষমতা আইনে। পরের বছর ১৩ মে খালেদা জিয়াসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে এ মামলায় অভিযোগপত্র দেয়া হয়।

মামলার অভিযোগপত্রে বলা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশ করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান গ্যাটকোকে ঢাকার কমলাপুর আইসিডি ও চট্টগ্রাম বন্দরের কনটেইনার হ্যান্ডলিংয়ের কাজ পাইয়ে দিয়ে রাষ্ট্রের ১৪ কোটি ৫৬ লাখ ৩৭ হাজার ৬১৬ টাকার ক্ষতি করেছেন।

বৃক্ষরোপনের মাধ্যমে ছাত্রলীগ সভাপতির জন্মদিন উদযাপন

করোনা মহামারীর ছোবলে বিদ্ধস্ত ও আক্রান্ত নাগরিক জীবন। তাই পরিবেশের প্রতি মানুষের দায়বদ্ধতা বেড়ে গেছে অনেকখানি। এমন প্রতিকূল সময়ে বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ভাইয়ের জন্মদিন উপলক্ষে তাঁর সার্বিক দিক নির্দেশনা এবং সম্মিলিত বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হাকিম সম্রাটের উদ্যোগে আজ ৩০ অক্টোবর, ২০২০ ইং এশিয়ান বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বৃক্ষরোপণ করা হয়। 

এতে আরো উপস্থিত ছিলেন এশিয়ান বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ নুরুল হাসনাত শুভ এবং সাধারণ সম্পাদক ওয়াসিদ আল জাহিদ সহ ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ। 

বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি প্রসঙ্গে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হাকিম সম্রাট বলেন, 'বাংলার ছাত্রসমাজের দিকপাল, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সংগ্রামী সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ভাই এর জন্মদিন উপলক্ষে এই বৃক্ষরোপনের উদ্যোগ। করোনা মহামারীতে সৃষ্ট সংকটে বিপর্যস্ত দেশ। এমতাবস্থায় জয় ভাইয়ের পরামর্শ ও নির্দেশনা ছিল, কোনো আড়ম্বরপূর্ণ আয়োজন নয় বরং ব্যক্তিগত দায়বদ্ধতা থেকে সমাজ ও পরিবেশের সার্বিক উন্নয়নের জন্য কিছু করা।এই জায়গা থেকেই এই উদ্যোগ। আসুন আমরা পরিবেশের প্রতি আরো বেশি সচেতন হয়ে উঠি এবং পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় কাজ করি।'

প্রতিটি ক্ষেত্রেই মিথ্যাচার করছে সরকার: ফখরুল

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, করোনা পরিস্থিতি, প্রণোদনাসহ প্রতিটি ক্ষেত্রেই মিথ্যাচার করছে সরকার। জনগণের সঙ্গে সরকারের কোনো সম্পর্ক নেই। সরকার জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। জনগণের প্রতি তাদের কোনো দায়বদ্ধতা নেই।

শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবে ‘কোভিড ১৯ এর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বাংলাদেশের কৃষি সেক্টরে কৌশল নির্ধারণ’ শীর্ষক সেমিনারে এসব কথা বলেন তিনি। এ সেমিনারের আয়োজন করে এগ্রিকালচারিস্টস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ।

মির্জা ফখরুল আরও বলেন, বর্তমান সরকার স্বৈরাচারী সরকার, ভিন্নমত সহ্য করতে পারে না। সরকারের কোনো কাজ নেই বলেই বিএনপির বিরুদ্ধে কথা বলে।

কর্ণফুলী রক্ষায় আয়োজিত হচ্ছে এই সাংস্কৃতিক আন্দোলন- আ জ ম নাছির উদ্দীন

মুজিব বর্ষ উপলক্ষে নগর আ'লীগের দুই দিন ব্যাপী সাম্পান উৎসব। 

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে আগামী ১৬ অক্টোবর থেকে দুই দিন ব্যাপী সাম্পান উৎসবের আয়োজন করেছে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ । কর্ণফুলী ও দেশের নদ-নদী দখল, দূষণ মুক্ত করণে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। 
এই উপলক্ষে আজ ১৩ অক্টোবর সকালে চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে।  সংবাদ সম্মেলনে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, অর্থনীতির সঞ্চালক কর্ণফুলী এখন দখল,দূষণ ও ভরাটসহ নানামুখী সমস্যার কবলে পড়েছে। শুধু কর্ণফুলী নয় দেশের সকল নদনদীগুলোই আজ দখল,দূষণের কবলে পড়ে অস্তিত্ব হারাতে বসেছে। তাই কর্ণফুলীসহ দেশের সকল নদনদী  দখল ও দূষনমুক্ত করণে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে এই চট্টগ্রাম থেকে সাংস্কৃতিক আন্দোলনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।  
সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ, আগামী ১৬ অক্টোবর শুক্রবার সকাল ১০ টায় কর্ণফুলীর অভয়মিত্র ঘাট থেকে শাহ আমানত সেতু এলাকা পর্যন্ত সাম্পান শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হবে। নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী এই শোভাযাত্রা উদ্বোধন করবেন। পরদিন ১৭ অক্টোবর শনিবার বিকাল ৩ টায় অভয় মিত্র ঘাট(নেভাল টু) এলাকায় সাম্পান খেলা ও চাঁটগাইয়া সাংস্কৃতিক মেলা অনুষ্ঠিত হবে।  এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন তথ্য মন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ এমপি। 
সাম্পান শোভাযাত্রা ও সাম্পান খেলায় ১০ জন মাঝি ও তাদের দল অংশগ্রহন করছে। অংশগ্রহণকারীরা হলেন- চট্টগ্রাম ইছানগর বাংলাবাজার সাম্পান মালিক কল্যান সমিতি, ইছানগর সদরঘাট সাম্পান মালিক কল্যান সমিতি, চরপাথরঘাটা ব্রিজঘাট সাম্পান চালক কল্যাণ সমিতি,চরপাথরঘাটা ব্রিজঘাট ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতি, পুরাতন ব্রিজঘাট ক্ষুদ্র মাছ ব্যবসায়ী সমিতি, মালেক শাহ দ্বীপ কালা মোড়ল সমিতি, শিকলবাহার আহমদ উল্লাহ শাহ, মাদ্রাসা পাড়ার মোহাম্মদ তারেক, শিকলবাহার শেখ আহমদ মাঝি ও সদরঘাট সাম্পান মালিক সমিতির নূর মোহাম্মদ। আয়োজনের সহযোগী হিসেবে কাজ করছে চট্টগ্রাম ইতিহাস সংস্কৃতি গবেষণা কেন্দ্র ও কর্ণফুলী নদী সাম্পান মাঝি কল্যান সমিতি। 
সংবাদ সম্মেলনে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, আমরা চাঁটগাইয়া নওজোয়ান। বুক পেতে  দিয়ে সকল ঝড়তুফান ঠেকিয়ে সামনে এগিয়ে চলার মন্ত্র নিয়ে আমরা বেড়ে উঠি। কর্ণফুলী নদীকে বাঁচানোর জন্য জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে এই  আয়োজনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। 
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নগর আওয়ামী লীগের মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে আয়োজিত ক্রীড়া বিভাগের চেয়ারম্যান দিদারুল আলম চৌধুরী।  এসময় নগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা শফর আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মসিউর রহমান, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আবু তাহের, ত্রাণ সম্পাদক মোহাম্মদ হোসেন, সাংবাদিক আলীউর রহমান, চৌধুরী ফরিদসহ সংশ্লিষ্ট সাম্পান মাঝিরা উপস্থিত ছিলেন

জয়পুরহাট ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আদনান গ্রেফতার

জয়পুরহাট জেলা জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলজার হোসেনসহ দলীয় নেতাকর্মীরা জানান, মোক্তাদুল আদনান জেলা বিএনপি কার্যালয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে বসে আলাপ-আলোচনা করার সময় আকস্মিক জয়পুরহাট থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জাকির হোসেনসহ কয়েকজন পুলিশ সদস্য তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়। কেন বা কোন মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে তাৎক্ষণিক কিছু জানানো হয়নি।

এ ব্যাপারে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে জয়পুরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহরিয়ার খান তাকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মোক্তাদুল আদনানসহ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। এসব মামলার মধ্যে জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আদনানকে আগের একটি নাশকতার মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে।

এদিকে জয়পুরহাট জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মোক্তাদুল হক আদনানকে গ্রেফতারের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে জেলা বিএনপির সভাপতি মো. মমতাজ উদ্দিন মণ্ডল ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নাফিজুর রহমান পলাশ অবলিম্বে তার নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেছেন।

ঢাকা-১৮ ও সিরাজগঞ্জ-১ আসনে আ.লীগ প্রার্থীদের চূড়ান্ত মনোনয়ন

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ডের সিদ্ধান্ত মোতাবেক আসন্ন জাতীয় সংসদ উপনির্বাচনে ঢাকা-১৮ আসনে মোহাম্মদ হাবিব হাছান ও সিরাজগঞ্জ-১ আসনে তানভীর শাকিল জয়কে চূড়ান্ত মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকালে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের তার সরকারি বাসভবনে ব্রিফিং কালে প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেন।

ওবায়দুল কাদের ঘোষিত প্রার্থীদের বিজয়ী করতে সকল ভেদাভেদ ভুলে মনোনয়ন বোর্ডের সিদ্ধান্ত মেনে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন।

আন্দোলন করে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবে বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন বিএনপির আন্দোলনের রং কি, বর্ণ কেমন ইতিমধ্যেই তাদের নেতাকর্মীরাতো বুঝেছেই, দেশের মানুষও দেখেছে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন বিএনপি'র আন্দোলন এখন রাজপথে নয়, তাদের আন্দোলন এখন পত্রিকার পাতা আর ফেসবুক স্ট্যাটাসে সীমাবদ্ধ।

ওবায়দুল কাদের বলেন আন্দোলনের কোন ইস্যু নেই, নেই বস্তুগত পরিস্থিতি, -এনিয়ে বিএনপি নেতারাও বিভ্রান্ত, তারা একবার বলে আন্দোলনের লক্ষ্য খালেদা জিয়ার মুক্তি, আবার বলে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার আন্দোলন, কখনো নির্বাচন কমিশন, কখনো আগাম নির্বাচন আবার কখনো সরকার পরিবর্তন। 

তিনি বলেন আন্দোলন -সংগ্রামের লক্ষ্য নির্ধারণেই বিএনপি চরম ব্যর্থ, আর আন্দোলন তো সুদূর পরাহত।

বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিয়ে ভোটের দিন জনগণকে কেন্দ্রে আসার আহবান জানিয়ে তারা নিজেরাই কেন্দ্রে যায় না উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন বিএনপি ভোটে অংশ নেয় নির্বাচনকে বিতর্কিত করতে।

তিনি বলেন জনগণ এখন বুঝে গেছেন বিএনপির অক্ষমতা আর দ্বি-চারিতা, নিকটবর্তী এবং দূরদর্শী লক্ষ্যহীন রাজনীতি আর সিদ্ধান্তহীনতা বিএনপিকে ক্রমশ: জনবিচ্ছিন্ন করে চলেছে।

দেশে গণতন্ত্র নেই বিএনপি মহাসচিবের অভিযোগ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন দেশে যদি গণতন্ত্র না থাকে, মত প্রকাশে বাধা থাকে তাহলে প্রতিদিন সরকারের বিরুদ্ধে বিষোদগার করছেন কি করে?

বাংলাদেশের ইতিহাসে এমন ব্যর্থ দায়িত্বহীন এবং লক্ষ্যহীন উদাহরণ একমাত্র বিএনপিই বলে মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের।

ছাত্রলীগের নেতারাই সবগুলো ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত: ফখরুল

সিলেটের এমসি কলেজে ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

রোববার (২৭ সেপ্টেম্বর) সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ধর্ষণের ঘটনা এটা নতুন কিছু নয়। ধর্ষণের সেঞ্চুরি উদযাপন করা ছাত্রলীগের চরিত্রগত স্বভাব এটা।

এ সময় তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পরে ধর্ষণের সংখ্যা এমনভাবে বেড়েছে অতীতে আমরা এমন কখনও দেখিনি। সব চাইতে লজ্জার কথা হলো আওয়ামী লীগের মতো একটা পুরোনো দলে যে ছাত্র সংগঠন যাদের একটা পুরানো ঐতিহ্য আছে, তাদের নেতারাই সবগুলো ঘটনার সাথে জড়িত।

তিনি বলেন, এ ঘটনার আমরা তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে দুষ্কৃতিকারীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি।

ফখরুল আরও বলেন, নৈরাজ্যের কারণেই এমন সব সামাজিক সমস্যা মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে।

ইমডেমনিটি নাটকসহ বিভিন্নভাবে জিয়াউর রহমান, বেগম জিয়া ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী বিক্ষোভ করছে বিএনপি।

রাজনীতি পাতার আরো খবর